জানুয়ারিতে ভিওঅাইপি কলরেট রিভিউ করবে সরকার
২০১৭

জানুয়ারিতে ভিওঅাইপি কলরেট রিভিউ করবে সরকার

December 30, 2014     Published Time : 03:15:37

ভিওঅাইপি

৩ থেকে দেড় সেন্টে নামিয়ে অানা (অর্ধেক) অান্তর্জাতিক ইনকামিং কলরেট রিভিউ করবে সরকার। অাগামী মাসের শুরুতে বা মাঝামাঝি রিভিউয়ের কাজটি শুরু হতে পারে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফিরোজ সালাহউদ্দিন জানিয়েছেন, এই পরীক্ষামূলক কলরেটের রিভিউ করবে সরকার। রিভিউ সন্তোষজনক হলেই সরকার পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।

সম্প্রতি বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে অালাপকালে তিনি বলেন, অার এক মাস পরেই কলরেট রিভিউ করা হবে। রিভিউয়ের পরে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। অান্তর্জাতিক কলরেট অর্ধেক করা হলেও দেশ থেকে যাওয়া কলের (অাউট গোয়িং) রেট কমানো হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, রিভিউয়ের সময় সেটাও বিবেচনায় নেওয়া হবে।

ফিরোজ সালাহউদ্দিন জানান, বর্তমানে দেশে প্রায় ১০ কোটি মিনিট কল অাসছে। কলের পরিমাণ অন্তত ১২ কোটি মিনিট হওয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন।

কলের পরিমাণ ১২ কোটি মিনিট বা এর চেয়ে কিছু বেশি হলে অান্তর্জাতিক কলের অায়ের অাগের অবস্থায় যাওয়া যাবে। রিভিউয়ের সময় এই খাত থেকে সরকার অাগের চেয়ে কত টাকা কম অায় করছে তারও বিশ্লেষণ করা হবে বলে জানান তিনি।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সিস্টেমস অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগ পরীক্ষামূলকভাবে ভিওঅাইপি কলরেট অর্ধেক করার বিষয়ে একটি নোটিশ জারি করে।

নোটিশে বলা হয়, আন্তর্জাতিক ইনকামিং কলের ক্ষেত্রে প্রতি মিনিটের সর্বনিম্ন রেট শূন্য দশমিক শূন্য তিন (০.০৩) মার্কিন ডলার থেকে কমিয়ে সর্বনিম্ন শূন্য দশমিক শূন্য এক পাঁচ (০.০১৫) ডলার করা হয়েছে।

এই কল থেকে রাজস্ব আয়ের ৪০ শতাংশ বিটিআরসি, ২০ শতাংশ ইন্টারন্যাশনাল গেটওয়ে (আইজিডব্লিউ), ১৭.৫ শতাংশ ইন্টারকানেকশন এক্সচেঞ্জ (আইসিএক্স) এবং ২২.৫ শতাংশ সংশ্লিষ্ট গ্রাহকের অপারেটর বা এক্সেস নেটওয়ার্ক সার্ভিস (এএনএস) পাবে।

আগে রাজস্ব ভাগাভাগির এই হার ছিল বিটিআরসি ৫১.৭৫, আইজিডব্লিউ ১৩.২৫, আইসিএক্স ১৫ এবং এএনএস ২০ শতাংশ।

এর অাগে গত ২৮ অাগস্ট প্রধানমন্ত্রী এ প্রস্তাব অনুমোদন করেন। অার বিটিঅারসি নোটিশ জারি করে ১৮ সেপ্টেম্বর। নোটিশ জারির দিন থেকে পরবর্তী ৬ মাসকে (১৮ মার্চ পর্যন্ত) পরীক্ষামূলক মেয়াদকাল ধরা হয়েছে।

দেশের অবৈধ ভিওআইপি (ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল) রোধে বিটিঅারসি কলরেট ৫০ শতাংশ কমানোর উদ্যোগ নিলেও তা কার্যকরে বাধা ছিল অর্থমন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় একাধিকবার ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং বিটিঅারসির এ সংক্রান্ত প্রস্তাব অর্থমন্ত্রণালয় ফেরত পাঠায়।

কলরেট ৩ সেন্ট থেকে কমিয়ে দেড় সেন্ট করায় সরকারের রাজস্ব আয় প্রায় ১ হাজার ৭৩ কোটি টাকা কম হবে বলে প্রস্তাবনা তৈরির সময় জানানো হয়।

গত মার্চ মাসে অর্থমন্ত্রণালয় প্রথমবারের মতো প্রস্তাবটি বাতিল করে। পরে মে মাসে বিটিঅারসি অাবারও প্রস্তাব পাঠায় অর্থমন্ত্রণালয়ে। প্রস্তাবে বলা হয়, ভিওঅাইপি কলরেট অর্ধেক করা হলে দেশের ইনকামিং কল বাড়বে। এতে সরকারের ‌‌অায় তো কমবেই না বরং ১৬২ কোটি টাকা অায় বাড়বে। এই প্রস্তাবও অর্থমন্ত্রণালয় বাতিল করে। পরে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে মন্ত্রণালয় পরামর্শক নিয়োগের সুপারিশ করে।

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালের এপ্রিলে আইজিডব্লিউ’র ২৫টি লাইসেন্স দেয় সরকার। বেশি অপারেটর এলে বৈধ পথে আসা কলের সংখ্যা বাড়বে ধারণা করা হলেও কল সংখ্যা বাড়েনি।

লাইসেন্স ইস্যু করার আগে বৈধ পথে কল আসত প্রায় সাড়ে ৫ কোটি মিনিট। নতুন অপারেটররা অপারেশনে এলে বৈধ পথে কলের সংখ্যা আড়াই কোটি মিনিটে নেমে যায়। যদিও ৩১ মে পর্যন্ত দেশে অাসা কলের পরিমাণ ছিল ৫ কোটি ৮৫ লাখ মিনিট। ৩০ সেপ্টেম্বর যা ছিল প্রায় ৮ কোটি মিনিট।

এ খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের অভিমত, ইনকামিং কলের পরিমাণ ১৩ কোটি মিনিট হলেই কেবল অায়ের অাগের অবস্থায় পৌঁছানো সম্ভব হবে। অাগের চেয়ে এ খাত থেকে অায় বাড়াতে হলে দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হবে দেশকে।

জানা গেছে, থাইল্যান্ড ও সিঙ্গাপুরে অাসা অান্তর্জতিক কলের রেট ৬, ফিলিপাইনে ১১, শ্রীলঙ্কায় ৯, পাকিস্তানে ৮.৮ সেন্ট। ভারতে এই রেট ১ সেন্ট। ভারতের কলরেট নির্ধারিত হয়েছে সে দেশের মোট জনসংখ্যার ওপর ভিত্তি করে।
Think Tank Bangladesh 21232-/ 30