অযান্ত্রিক’র রক্তাত্ব প্যালোস্টাইন মানবতাবাদীদের আর্তনাদ
২০১৭

অযান্ত্রিক’র রক্তাত্ব প্যালোস্টাইন মানবতাবাদীদের আর্তনাদ

August 02, 2014     Published Time : 20:26:48

‘ইসরাইল যখন ‘ভালো ব্যাবহার’ করে তখন গড়ে প্রতি সপ্তাহে দুইজনেরও বেশি ফিলিস্তিনি শিশু হত্যা করা হয়, এমনটি হয়ে আসছে টানা চৌদ্দ বছর ধরে।’ (নোয়াম চমস্কি)আর যখন ভালো ব্যবহারের বদলে বিমান হামলা চালানো হয়, তখন কী পরিমাণ শিশু হত্যা করা হয়, কী পরিমাণ ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয় তার দৃষ্টান্ত বলাই বাহুল্য। ফিলিস্তিনের গাজায় এমনি ইসরাইলি হামলার প্রতিবাদে সারা বিশ্বের মানুষ যার যার বিবেকের তাড়নায় জেগে উঠেছে। মুসলিম বিশ্বের পাশাপাশি সারা পশ্চিমা দুনিয়ার মানবতাবাদী জনগণও প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছে। 

ইসরাইলের এই গণহত্যায় সরকারি হিসেবে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। কিন্তু বেসরকারি হিসেবে এ সংখ্যা আরো অনেক বেশি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আহতের সংখ্যা প্রায় দশ হাজার। এছাড়া হাজার হাজার নারী-পুরুষ, বৃদ্ধ ও শিশু চিরজীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে গেছে। ধ্বংস হয়ে গেছে অসংখ্য মানুষের জনবসতি। বোমায় বিধ্বস্ত হয়েছে ভবনের পর ভবন। পুরো গাজা যেন এক মৃত্যুপুরি।  

বিশ্বের মানবতাবাদী মানুষেরা এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে। বিক্ষোভ, মিছিল, মানববন্ধন, আলোচনা সভা, মানববন্ধন ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলনসহ বিভিন্ন উপায়ে ইসরাইলি হামলার ব্যাপক প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। বিশ্বের প্রতিবাদী বুদ্ধিজীবী, লেখক, কবি সাহিত্যিকরাও জেগে উঠেছে।দৈনিক পত্রিকাগুলোতে ছাপা হচ্ছে প্রতিবাদী নিবন্ধ, কলাম ও কবিতা। একইসাথে সাপ্তাহিকসহ সাহিত্যের ছোট কাগজগুলোও প্রকাশ করছে বিশেষ সংখ্যা।অনলাইন শিল্প-সাহিত্যের সাময়িকী অযান্ত্রিকও ইতিহাসের এমন বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদ থেকে পিছিয়ে নেই। পত্রিকাটি ফিলিস্তিনের উপর বিশেষ একটি সংখ্যার আয়োজন করেছে। পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানের লেখকদের আয়োজনে তাদের এই প্রয়াস। অনলাইন ভিত্তিক ছোট্ট সাময়িকীটি ‘রক্তাক্ত প্যালোস্টাইন মানবতাবাদীদের আর্তনাদ’ নামে তাদের এ আয়োজন শুরু করেছে প্রবন্ধ-নিবন্ধ দিয়ে। সৈয়দ মুজতবা আলীর ‘জেরূসলম’, ড.মাহবুব হাসানের ‘গাজায় মানবতাবাদের হত্যাযজ্ঞ’, মো তৌহিদুল আলম খানের ‘Saga Of Palestine’। এছাড়া প্রখ্যাত আন্তর্জাতিক বুদ্ধিজীবী নোয়াম চোমস্কির ‘গাজার উৎপীড়ন, ইসরাইলের দুষ্কার্য ও আমাদের দায়িত্ব। লিখেছেন নোয়াম চোমস্ক। অনুবাদ করেছেন মীর রিফাত-উস-সালেহীন।

কবিতা লিখিছেন সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল। তার কবিতার শিরোনাম ‘অল কান্ট্রিস অফ দ্যা ওয়ার্লড একসেপ্ট ইসরায়েল- সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল। ‘কার যেন অট্টহাসি তবু শোনা যায়’- তমিজ উদদীন লোদী, ‘এ সময় ও ঘুমিয়ে থাকে-‘ শামস আল মমীন’, ‘রক্তসন্ধ্যা শেষে-ফকির ইলিয়াস এবং ‘এই কবিতাটি’- মহীবুল আজিজ। রইস মনরমের ‘সূর্যের পোশাক’, সুমিন শাওনের ‘প্যারালাল জ্যোৎস্নাঝড়ে’,  দর্পণ কবীর ‘বিবেক’, শরিফুল ইসলাম খানের ‘আবারো সে ভূমিষ্ঠ হবে’, সিজন নাহিয়ানের ‘দাবি’। 

ইংরেজিতে কবিতা লিখেছেন নাফিসা আলম তরী। কবিতার শিরোনাম ‘LIVING ALONE’। 

এছাড়া রয়েছে অনুবাদ কবিতা। ‘আমরা ভাল আছি, তোমরা?—খালেদ এল-হিবর, তরজমা হাসান ফিরদৌস, ‘একটি ভূখণ্ডের দিকে যাচ্ছি’—মাহমুদ দারবিশ, তরজমা ওবায়েদ আকাশ।গল্প লিখেছেন তাসনিমুল আলম খান সামিন। তার গল্প ONE DAY IN A VERY MORNING।প্রতিবাদী ছড়া লিখেছেন মামুন জামিল।আমার কথা ভেড়াকে দিয়ে হাল চাষ হয় না - মাজহারুল ইসলাম 

উল্লেখ্য, সংখ্যাটি মূদ্রণ আকারেও প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। এটি পাওয়া যাবে শাহবাগ আজিজ সুপার মার্কেট, নিউইয়র্ক মুক্তধারাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে।
Think Tank Bangladesh 21232-/ 02